1. mahadihasaninc@gmail.com : dailylalbarta :
হাতীবান্ধায় জোর করে অন্যের দোকান দখলে নেয়ার চেষ্টা ভাড়াটিয়ার - dailylalbarta
৫ই নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ| ২০শে কার্তিক, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ| হেমন্তকাল| শনিবার| রাত ৮:৩২|

হাতীবান্ধায় জোর করে অন্যের দোকান দখলে নেয়ার চেষ্টা ভাড়াটিয়ার

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, জুলাই ৮, ২০২২,
  • 33 Time View

রকিবুল হাসান রিপন হাতীবান্ধা (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি :

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলা মালিকের প্রয়োজনেও দোকান ঘর ছেড়ে না দেওয়া ও ক্ষমতার জোরে অন্যের দোকান দখলে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে এক ভাড়াটিয়ার বিরুদ্ধে।দোকান ঘর ছেরে দেয়ার জন্য চাপ দিলে উল্টো দোকান মালিকের বিরুদ্ধেই মিথ্যা অভিযোগ করেন স্থানীয় থানায়।

এবিষয়ে দোকান মালিক স্থানীয় জনপ্রতি সহ সংবাদকর্মীদের জানালে বুধবার (৭ই জুলাই) সকালে হাতীবান্ধা উপজেলার সিংগীমারী ইউনিয়নের ধুবনী হাজীর মোড় এলাকায় গিয়ে দেখা যায় ,ওই এলাকার শাহিনা বেগমের ক্রয়কৃত জমির উপর দীর্ঘদিন ধরে পোল্ট্রি মুরগির ব্যবসা করে আসছে ভাড়াটিয়া জাকির হোসেন।

জানা গেছে, গত দুইমাস আগে শাহিনা বেগম একই এলাকার মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে শহিদুল ইসলামের নিজ নামিও আড়াই শতাংশ জমি ক্রয় করেন। যার দলিল নং ২৪৯০/২২। এরপর ওই সময় জমির উপর পোল্ট্রি ব্যবসা করার জন্য ভাড়াটিয়া হিসেবে জাকির হোসেনকে ভাড়া দেয়া হয়। পুরাতন ঘর মেরামত করার জন্য জাকির হোসেনকে দোকানঘর ছেড়ে দিতে বললে তিনি টালবাহানা শুরু করেন। পরে এনিয়ে স্থানীয়ভাবে সাবেক ইউপি সদস্য মোশাররফ হোসেনসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে জাকির হোসেনকে ৭ দিনের সময় বেঁধে দিয়ে ঘড় ছেড়ে দেওয়ার কথা বলা হয়।
কিন্তু ১২ দিন পার হলেও ঘরছেড়ে না দিলে মালিক পক্ষ এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সামনে জাকির হোসেনকে ডেকে তার দোকানে থাকা ১৬ টি মুরগী বের করে দিয়ে পুরাতন দোকান ঘর ভেঙে নতুন ঘর করার জন্য কাজ শুরু করেন। এসময় ঐ জমির পুর্বের মালিক শহিদুল ইসলাম মিলনের মা দৌলতন নেছা বাঁধা দিলে থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে দোকানের সকল ধরনের কাজ বন্ধ রাখা হয়।
এবিষয়ে ভাড়াটিয়া জাকির হোসেন বলেন, আগে থেকে কিছু না বলে হঠাৎ করে জমির মালিকপক্ষ এসে আমার দোকান ভেঙ্গে মুরগীসহ সব কিছু লুটপাট করে নিয়ে গেছে। তাই আমি থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছে।

দোকান ঘরের মালিক শাহিনা বেগম বলেন, আমরা জাকিরকে ৭ দিনের সময় দিয়েছিলাম কিন্তু ১২ দিন পরও তিনি দোকান ছেড়ে দেয়নি।
এবিষয়ে জমির পুর্বের মালিক মিলনের মা বলেন আমার ছেলে মিলন জমি বিক্রি করার সময় আমাদের সাথে কোন কথা বলেনি আগে বললে আমার ছোট ছেলে মিঠু জমি ক্রয় করতো তাই আমরা ওই জমির উপর আদালতে পেনশনে টাকা দাখিল করেছি।

এবিষয়ে হাতীবান্ধা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, দোকান ভাংচুরের একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।ভাড়াটিয়া যদি মিথ্যে অভিযোগ দিয়ে থাকে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 banglahost
Design & Developed by : BD IT HOST