সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১১:১২ পূর্বাহ্ন

ঘোষনাঃ-
সারাদেশে সকল জেলা ও উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ করা হইবে, আগ্রহী প্রার্থীগণকে নিম্ন ঠিকানায় অথবা ইমেইল এ আবেদন পত্র জমা দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হইলো।
শিরোনাম :
৯৯৯ জরুরী সেবা পাচ্ছেন পাটগ্রাম উপজেলাবাসী ধুনটে জমঈয়তে আহলে হাদীসের নান্দিয়ার পাড়া এলাকা কমিটি গঠন পাটগ্রাম স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে বদলি লালমনিরহাট নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা উদ্বোধন পলাশবাড়ী সোনালী ব্যাংক ভবনে ঢুকে কর্মকর্তাদের লাঞ্চিত ও হামলা :: শাখাটির ভবন পরিবর্তনের দাবী সচেতন মহলের বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসোসিয়েশনের রংপুর বিভাগীয় সভাপতি নির্বাচিত হলেন পাটগ্রামের নেতা বাবুল জাতীয় আবৃত্তি কার বাঙালী মঞ্চের সাধারণ সম্পাদকে আরিফ পাটোয়ারীর ফুলের শুভেচ্ছা পাটগ্রামে জমি নিয়ে সংঘর্ষ আহত-৪ তিস্তা এখন ধু-ধু বালু চর কৃষিক্ষেত্রে বিরূপ প্রভাব আবারো দেখতে চান হামুকে খুনিয়াগাছ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বুড়িমারীতে পিটিয়ে-পুড়িয়ে হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন জেলা প্রশাসকের নিকট হস্তান্তর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠানে যুবলীগের পক্ষ থেকে মেয়র প্রার্থী ঘোষণা দিলেন নেতারা বুড়িমারীতে হত্যা মামলার ১ নম্বর অাসামী আবুলের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর কুচলিবাড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের বঙ্গবন্ধু টি- 10 শর্টপিচ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট খেলার পুরস্কার বিতরণ বুড়িমারীতে হত্যার শিকার জুয়েলের মেয়ের হাতে অনুদানের চেক তুলে দিলেন লালমনিরহাট ডিসি পাটগ্রামে গণঅবস্থান মানববন্ধন বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন হিন্দু জনগোষ্ঠী সংসদে নিন্দা প্রস্তাব উত্থাপনের দাবি জানালেন পাটগ্রামের আলেম সমাজ বুড়িমারীর ঘটনার মূল হোতা হোসেন ডেকোরেটর মালিক ঢাকায় গোয়েন্দা পুলিশের হাতে গ্রেফতার ডিমলায় পরিবেশ ও শব্দদূষণ প্রতিরোধ কমিটির আলোচনা অনুষ্ঠিত জুয়েল হত্যার বিচারের দাবীতে নাগরিক অধিকার ফোরামের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

কালীগঞ্জে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার

এস বাবু রায়, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনায় এক কিশোরী (১৫) গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি নুরু মিয়াকে (৫০) গ্রেফতার করেছে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত নুরু মিয়া কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়নের বানিনগর এলাকার মজির পুত্র। নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কালীগঞ্জ থানার ওসি আরজু মো. সাজ্জাদ হোসেন। মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা এলাকার এক কিশোরী(১৫) গত ৬ অক্টোবর সন্ধ্যায় লালমনিরহাটগামী আন্তঃনগর করতোয়া এক্সপ্রেস ট্রেনে কাউনিয়ার উদ্দেশে রওনা হয়। ট্রেন কালীগঞ্জের কাকিনা স্টেশনে দঁাড়ালে ওই কিশোরী নাস্তা করতে নামে। সে সময় রকি (২২) নামে পরিচয় দিয়ে অটোরিকশার চালক কিশোরীর কাছে জানতে চান সে কোথায় যাচ্ছে। তখন মেয়েটি তাকে কাউনিয়া যাচ্ছে বলে জানায়। রকিও নিজেকে কাউনিয়ার বাসিন্দা বলে পরিচয় দেন। এরই মধ্যে ট্রেন স্টেশন ছেড়ে গেলে রকি অটোরিকশায় করে কাউনিয়া যাবেন এবং সেই অটোরিকশায় মেয়েটিকে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক রকি ওই কিশোরীকে নিয়ে কাউনিয়া যাওয়ার কথা বলে নিজের অটোরিকশায় বিভিন্ন সড়ক ঘুরে মধ্য রাতে একটি সেচ পাম্পের নির্জন ঘরে নিয়ে যান। সেখানে রকি ও তার তিন বন্ধু মিলে কিশোরীকে গণধর্ষণ করেন। বিষয়টি দেখে ফেলে অপর একটি গ্রুপের তিন যুবকও কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরদিন ৭ অক্টোবর সকালে মুখ না খোলার শর্তে কিশোরীকে মুক্তি দেন বখাটেরা। পরে অসুস্থ অবস্থায় কিশোরী পথ ভুলে চলার পথে স্থানীয়রা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মেয়েটি তাদের কাছে বিষয়টি খুলে বলে। তারপর স্থানীয়দের সহায়তায় এক গ্রাম পুলিশ সদস্যের বাড়িতে আশ্রয় নেয় মেয়েটি। ৮ অক্টোবর রাতে বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় মাতব্বররা বৈঠকে বসে ধর্ষণকারী যুবকদের শনাক্ত করে মোটা অংকের টাকা জরিমানা আদায় করেন। তবে কিশোরীর অভিযোগ, টাকাগুলো তাকে না দিয়ে নিজেদের পকেটেই রাখেন মাতব্বররা। জরিমানার টাকা কিশোরীকে না দিয়ে উল্টো তাকে হুমকি দিয়ে পথ খরচ দুই হাজার টাকা দিয়ে মাতব্বররা তাকে পাঠিয়ে দেন বলেও অভিযোগ করে মেয়েটি। পরে ৯ অক্টোবর দুপুরে স্থানীয়দের মাধ্যমে কিশোরী কালীগঞ্জ প্রেসক্লাবে আশ্রয় নেয়। প্রেসক্লাবে ঘটনার লোমহর্ষক এ বর্ণনা শুনে সাংবাদিকরা থানায় জানায়। এর পরপরই কিশোরীকে উদ্ধার করে নিজেদের হেফাজতে নেয় কালীগঞ্জ থানা পুলিশ এবং পরে মেয়েটির দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে প্রাথমিক তদন্ত করে ওইদিন রাতে মূলহোতা অটোচালক রকিকে আটক করে। রকির দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই কিশোরী বাদী হয়ে ইউপি সদস্যসহ ১০ জনের নাম উল্লেখসহ আরও চার/পঁাচ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা নেয় পুলিশ। এর পরেই বাকি আসামিরা গা ঢাকা দেয়। গোপন খবরের ভিত্তিতে কালীগঞ্জ থানার একটি দল নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় অভিযান চালিয়ে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের সহায়তায় এ মামলার প্রধান আসামি নুরু মিয়াকে গ্রেফতার করে। এ নিয়ে আলোচিত এ মামলায় এজাহার নামীয় ১০ আসামির মধ্যে দুইজনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। কালীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আরজু মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, মুলহোতা রকির পরে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি নুরুকে ফতুল্লা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলমান রয়েছে বলে জানান তিনি। ভূক্তভোগী কিশোরী, তঁার পরিবার এবং স্থানীয়রা জানান, সরকার নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। কোন ধর্ষণকারী আইনের উর্দ্ধে নয়। সরকার সবাইকে আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হয়েছে। ধর্ষণের কঠোর অবস্থান নেয়ায় সরকারকে ধন্যবাদ জানান স্থানীয় জনগণ।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 Daily Lal Barta
Design & Developed BY N Host BD