মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৮ অপরাহ্ন

ঘোষনাঃ-
সারাদেশে সকল জেলা ও উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ করা হইবে, আগ্রহী প্রার্থীগণকে নিম্ন ঠিকানায় অথবা ইমেইল এ আবেদন পত্র জমা দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হইলো।
শিরোনাম :
প্রধানমন্ত্রী উদ্যোগ নিয়েছেন তিস্তাপাড়ের মানুষকে সমৃদ্ধিশালী করার পাটগ্রাম পৌরসভায় ল্যাকটেটিং মাদার কর্মসূচীর আওতায় সাড়ে তিন’শ নাম তালিকার বিপরীতে আবেদন পরেছে দুই সহস্রাধিক কালীগঞ্জে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার বগুড়া ধুনটে জুমআর নামাজ পর উপজেলা চেয়ারম্যানের গাছের চারা বিতরণ পাটগ্রামে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় অন্তঃসত্ত্বা-ধর্ষক গ্রেফতার লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় জাল ভোট দেয়ার চেষ্টা ২ আওয়ামীলীগ কর্মীর কারাদন্ড হাতীবান্ধায় প্রয়াত বাবার পর ছেলে বিজয়ী হাতীবান্ধা গড্ডিমারী ইউনিয়নে(ইউপি) চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে ভোট বর্জনের ঘোষণা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রসমুহের জন্য নিরাপদ অভিবাসন বিষয়ে প্রশিক্ষণ কালীগঞ্জে চেয়ারম্যান পদের উপ-নির্বাচনে নৌকা-ধানের শীষকে পেছনে ফেলে জয়ী মোটরসাইকেল পাটগ্রামে পোল্ট্রি খামার ব্যবসায়ীর নিকট ফাঁকা চেক ও অলিখিত স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে পাটগ্রাম উপজেলার কুচলিবাড়ী ইউনিয়ন নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন প্রতিরোধে বিট-৪৭ পুলিশিংয়ের সমাবেশ অনুষ্ঠিত মা ইলিশ ও সম্পদ রক্ষায় নতুন দুটি প্রস্তাবনা ডিমলায় পূর্ব শত্রুতার জেরে মাছের পুকুর দখলের অভিযোগ প্রেসক্লাব, লালমনিরহাট এর সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন সাংবাদিক মোয়াজ্জেম হোসেনকে অনলাইন ক্লাশ পরিচালনায় পাটগ্রামে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের সাথে মতবিনিময় করলেন লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক লালমনিরহাটের বাচ্চা মিয়া ঘোড়ায় চড়ে ভিক্ষা করেন পুলিশ হয়রানী বন্ধের দাবীতে সড়ক অবরোধ ২২ বছর পর এমপিওভুক্ত হলেও সরকারি শিক্ষা ভবন বঞ্চিত পাটগ্রাম উপজেলার ইসলামী আদর্শ বিদ্যানিকেতন উচ্চ বিদ্যালয় জীবিত স্বামীকে মৃত্যু দেখিয়ে হাতীবান্ধায় একাধিক ব্যক্তি’র বিধবা ভাতা একে অপরকে দোষারোপ করছেন সংশ্লিষ্টরা

আমি ও আমার সাংবাদিকতা….

১৯৭৭সালের ২৯নভেম্বর কুচলিবাড়ী ইউনিয়নে সমশেরপুর গ্রামে জন্ম গ্রহণ করি, বাবা একজন সাধারণ কৃষক ছিলেন, মা গৃহীনি। ১৯৯১সালে আমার বাবা না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। ১৯৯৫সালে পাটগ্রাম টিএন স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায়  উত্তির্ন হই। ১৯৯৬সালে জীবন বাঁচানোর  তাগিদে পাড়ি জমাতে হয় ঢাকায়। কর্মের পাশাপাশি নিজেকে গড়ে তুলতে ভর্তি হই তিতুমীর কলেজে এইচএসসি প্রথম বর্ষে। অনেক কষ্ট করে  চালিয়ে যাই আমার লেখাপড়া, উত্তির্ন হই এইচএসসি পরীক্ষায়। শুরু হয় জীবনের আরেক ধাপ এগিয়ে চলা। অবশেষে ভর্তি হই অনার্স করতে দুর্ভাগ্য জনক হলেও সত্যি যে অনার্স পাশ করার সৌভাগ্য আমার হয়নি। পারিবারিক বিভিন্ন চাপে আমাকে থমকে দাঁড়াতে বাধ্য হতে হয়। সমাপ্তি করতে হয় শিক্ষা নামক আলোর প্রদীপকে। শুরু হলো আমার জীবনের নতুন করে পথচলা….
আমার বয়স তখন ২৬বছর-২০০৪ সালে, সাংবাদিকতার প্রথম হাতে খড়ি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক বাংলার দূত পত্রিকায় নিয়োগ পেলাম পাটগ্রাম উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে, শুরু হলো আমার সাংবাদিকতার পথচলা, ২০০৫সালে এসে সংযুক্ত হলাম দৈনিক বাংলাদেশ সময় পত্রিকায় ও আঞ্চলিক পত্রিকা উত্তর অঞ্চলের বহুল আলোচিত প্রচারিত প্রকাশিত দৈনিক বগুড়া, ২০০৮ সালে এসে যোগদান করি দেশবন্ধু গ্রুপের দৈনিক আজকালের খবর পত্রিকায়, অনেক হুমকি ধামকি আর ঝড় ঝাপটার মধ্য দিয়ে পাটগ্রাম উপজেলার মাঠে ময়দানে টিকে থাকার আরেক লড়াই, ২০১১সালে এসে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির রোষানলে পড়ে বিএনপি অস্থায়ী অফিসের অগ্নি সংযোগের ছবি তুলতে গিয়ে আমার হাত থেকে ছিনিয়ে নেয়া হয় ক্যামেরাটা, আমাকে করা হয় লাঞ্ছিত, আমার পথচলা থেমে নেই তখনো, ক্যামেরাটি উদ্ধার করতে অনেক রাজনৈতিক নেতার কাছে দারস্থ হই কিন্তু কেউ একটু সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেননি। একই সালে আমার আমার বাড়িতে সুপরিকল্পিতভাবে পূর্ব শত্রুতার জের ও রাজনৈতিক জের ধরে আমার পরিবারের লোকজনের উপর চালানো হয় নির্মম নির্যাতন, তারপরে থেমে যায়নি আমার পথ চলা, আমার পরিবারের উপর নির্মম নির্যাতনের প্রতিবাদে স্থানীয় সুধী সমাজ পাটগ্রাম উপজেলার চৌরাস্তা মোড়ে হামলাকারীদের বিচার ও শাস্তির  দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানান,  কিন্তু প্রশসান তখনো রাজনৈতিক কারণে কোন পদক্ষেপ নেননি। চলার পথে আমি একমাত্র অবলম্বন আমার পরিবারের।  নানান প্রতিকুলতা মোকাবেলা করে চলতে গিয়ে অনেকে সাথে মনোমালিন্য হয়েছে বটে, তবে কারো ক্ষতিটুকু করিনি।
সাংবাদিকতার পাশাপাশি নিজেকে সামাজিক বিভিন্ন কর্মকান্ডে জড়িয়ে নিয়ে ২০১১সালেই স্থানীয় ইউপি নির্বাচনে সাধারণ সদস্য হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করি, কিন্তু দীর্ঘদিন আমার এলাকার বাহিরে অবস্থান করার কারণ নির্বাচনে জনপ্রিয়তা কমছিলো। ২০১৬ সালে একটি অনলাইন ভিত্তি নিউজ পোর্টাল তৈরি করি “দৈনিক লালবার্তা” নামে। পা পা করে এগিয়ে যেতে থাকি বাধাহীনভাবে। মাথার উপর ছায়া হিসেবে পাশে দাঁড়ান এক সময়ের তুখোর ছাত্র নেতা আমার শ্রোদ্ধাভাজন মোস্তফা হাসান ভাই। তার ভালবাসা ও দোয়া নিয়ে  আবারও সাংবাদিকতার পাশাপাশি নিজেকে জনগণের সাথে মিশিয়ে দিয়ে তাদের পাশে থাকার চেষ্টা করি। নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে হাজারো মানুষের ভালবাসা নিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হই। বিধাতার খেলা বুঝতে পারি না, কখন কোন খেলা খেলে। চলছে আমার অবিরাম পথচলা।
              সংক্ষিপ্ত………..
জিয়াউর রহমান মানিক
নির্বাহী সম্পাদক
ডেইলী লালবার্তা

নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 Daily Lal Barta
Design & Developed BY N Host BD